চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১

ওসি আলমগীরসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে ৩ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা

প্রিয়সংবাদ ডেস্ক  ২০১৮-০৫-০৭ ১৩:০৫:৪৪   বিভাগ:

 

আকবর শাহ থানার ওসি সহযোগিতায় জায়গা দখল

আদালতে বিচারধীন বিরোধপূর্ণ জায়গা থেকে বেআইনীভাবে উচ্ছেদ করায় সিএমপি আকবর শাহ থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) মুহাম্মদ আলমগীর (আলমগীর মাহমুদ)সহ ৭ জনের বিরুদ্ধে ৩ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা করেছেন জাকির হোসেন নামে ভুক্তভোগি ।এক মুক্তিযোদ্ধা।

আজ সোমবার চট্টগ্রামের দ্বিতীয় যুগ্ম জেলা জজ মোহাম্মদ আলীর আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন বাদী আইনজীবি এডভোকেট শিমলা চৌধুরী। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে বিবাদীদের বিরুদ্ধে নোটিশ জারী করেছেন।

মামলায় যাদের আসামী করা হয়েছে তারা হলেন, মামলার আরজিতে আরও যাদের বিবাদী করা হয়েছে তারা হলেন, মো. ইছাক, মো.হাফিজুর রহমান, আলাউদ্দিন (আকবরশাহ থানার ১০ নং তালিকাভূক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী) প্রদ্যেকের পিতা শেখ আহম্মদ, মা জোহরা খাতুন, স্বামী নূর মরহুম নুর হোসেন, বোন হাজেরা খাতুন প্রকাশ পাখিনী ও লায়লা খাতুন ঠিকানা- আক্কেল আলী মুন্সির বাড়ী থানা আকবরশাহ, এবং আকবর শাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) মুহাম্মদ আলমগীর।

মামলার বিবরণে জানা যায়, মহানগরীর আকবরশাহ থানার বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা জাকির হোসেনের সাথে প্রতিবেশীদের জায়গা জমি বিরোধ চলে আসছিল। ১৯৯১ সালের ১৫ জুন এলাকার শেখ আহাম্মদের পরিবার জায়গার মালিকানা দাবী করে মামলা করে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বিরুদ্ধে মামলা করেন আদালতে। ২৮/৪/৯৪ ইং তারিখে এ মামলায় মুক্তিযোদ্ধার পক্ষে রায় দেন আদালত। পরে শেখ আহাম্মদের ছেলেরা আবার জেলা জজ আদালতে আপীল মামলা করে। এতেও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পক্ষে দুদফায় রায় হয়। এ অবস্থায় ৩/৪/২০১৩ সালে পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে মুক্তিযোদ্ধা জাকির হোসেনকে জায়গা বুঝিয়ে দেন। দখল বুঝিয়ে দেয়ার ৮ দিনের মাথায় আবারও আদালতে আপীল মামলা দায়ের করে। আপিল বিভাগ বিরোধপূর্ণ ওই জায়গায় যে কোন ধরনের কার্যক্রমের উপর স্থগিতাদেশ জারি করেন।

এঅবস্থায় গত ৮ এপ্রিল আকবর শাহ থানার ওসি আলমীগের সহযোগিতায় অন্যায়ভাবে পুলিশ দিয়ে জোরপূর্বক জাকির হোসেন ও তার পরিবার এবং ভাড়াটিয়াদের জায়গা থেকে উচ্ছেদ করে দেন। থানা পুলিশের এ বেআইনী কাজের জন্য বাদী মুক্তিযোদ্ধা জাকির হোসেন উকিল নোটিশ দিলেও তাতে সাড়া না দিয়ে থানার তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী আলাউদ্দিন গংদের পক্ষে অবস্থান নেন।

মামলার বাদী জাকির হোসেন এতো বছর মামলার মাধ্যমে আসামীরা ৩ কোটি ২০ লাখ ৮৬ হাজার ৫০০ টাকার ক্ষতিসাধন করেন। তাই তাদের কাছে ক্ষতি পূরণ চেয়ে আদালতে দারস্ত হয়েছি।সূত্র: পাঠক নিউজ



ফেইসবুকে আমরা